1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
সংসদ নির্বাচন: জাতীয় পার্টিকে কাছে টানছে বিএনপি - বাংলা টাইমস
বৃহস্পতিবার, ০১ জুন ২০২৩, ০৩:১৪ অপরাহ্ন

সংসদ নির্বাচন: জাতীয় পার্টিকে কাছে টানছে বিএনপি

বিশেষ প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৮ মে, ২০২৩
  • ৬৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় পার্টি কোন পথে আগাবে, এ নিয়ে আলোচনা রয়েছে এ কারণে যে বিএনপি আবার ভোট বর্জনের কথা বলছে। দলটি নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের দাবিতে ফিরে গেছে। আর দাবি আদায়ে বিভিন্ন দলের সঙ্গে আন্দোলন করছে যুগপৎ আন্দোলন করতে। যাই হোক এবার জাতীয় পার্টিকে কাছে টানতে চাইছে বিএনপি। এরই মধ্যে দুদলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের মধ্যে হয়েছে কয়েক দফা আলোচনা। বিষয়টি স্বীকার করে এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য দলীয় বৈঠকের অপেক্ষায় রয়েছেন জি এম কাদের। আর বিএনপি নেতারা মনে করছেন, বৃহত্তর স্বার্থে এবার তাদের সঙ্গে আসবে জাতীয় পার্টি।

 

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আগেই বলছি যে একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। এই সংসদ বাতিল করতে হবে, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে, যাদের নেতৃত্বে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন হবে, তারা সব দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে ভোটের পরিবেশ তৈরি করবে, যাতে ভোটাররা ভোট দিতে পারেন।

এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ক্ষমতার বাইরে আছে বিএনপি। রাজপথে আছে যুগপৎ আন্দোলনে। তাতে এবার হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টিকেও শামিল করতে চায় দলটি।

গত ১৯ আগস্ট রাতে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে নিখোঁজ বিএনপি নেতা ও সাবেক সংসদ সদস্য ইলিয়াস আলীর বড় ছেলে আবরার ইলিয়াসের বিয়ের অনুষ্ঠানে পাশাপাশি বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের। ছবি: সংগৃহীত

আর এ উদ্যোগ দৃশ্যমান হয় ১৬ বছর পর বিএনপির ইফতারে জাতীয় পার্টির নেতাদের অংশ গ্রহণে। একইভাবে জাতীয় পার্টির ইফতারেও শামিল হন বিএনপি নেতারা। এ ছাড়া নানা সামাজিক অনুষ্ঠানেও এক টেবিলে দেখা গেছে দুদলের নেতাদের। এতে গুঞ্জন উঠেছে, দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি কি আওয়ামী লীগ ছেড়ে, জোট বাঁধবে বিএনপির সঙ্গে?

এ প্রশ্নে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের বলেছেন, এ নিয়ে নানা পর্যায়ে কথা হচ্ছে। জনগণ পরিবর্তন চায় উল্লেখ করে তিনি জানান, দলীয় নেতা-কর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে নির্বাচনের আগেই হবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।

আলোচনার কথা স্বীকার করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান বলেছেন, বৃহত্তর স্বার্থে মতভেদ ভুলে সামনে এগোনোর লক্ষ্যেই জাতীয় পার্টির সঙ্গে আলোচনা। আর এ ডাকে সাড়া মিলেছে বলেও দাবি তার।

সব দলের অংশগ্রহণে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন না হলে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে বলেও মনে করছেন বিএনপি ও জাতীয় পার্টির নেতারা।

১৯৮২ সালে বিএনপির নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি আবদুস সাত্তারকে ক্ষমতাচ্যুত করে রাষ্ট্রপতি হওয়া হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ জাতীয় পার্টি গঠন করেন ১৯৮৪ সালে। এরশাদ সরকারের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি এক হয়ে আন্দোলন করলেও তার পতনের পর দুই দলই জাতীয় পার্টির সঙ্গে জোট করে।

১৯৯৯ সালে জামায়াতে ইসলামী, ইসলামী ঐক্যজোট ও এরশাদের জাতীয় পার্টিকে নিয়ে বিএনপির বেগম খালেদা জিয়া গঠন করেন চারদলীয় জোট। তবে আসন বণ্টন নিয়ে আপত্তিতে ২০০১ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগে জোট ছেড়ে যান এরশাদ। তবে তার দলের একটি অংশ বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি গঠন করে থেকে যায় জোটে। সেই বিজেপিও পরে ‍দুই ভাগ হয়। এর মধ্যে আন্দালিভ রহমান পার্থের নেতৃত্বাধীন অংশ ছেড়েছে জোট।

২০০৭ সালের শুরুতে যে নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল, সেটিকে সামনে রেখে পরে জাতীয় পার্টির সঙ্গে জোট করে আওয়ামী লীগ। সেই নির্বাচন স্থগিত হওয়ার পর ২০০৮ সালের ডিসেম্বরে ভোট আবার জোটবদ্ধভাবে হয়।

২০১৪ সালে বিএনপির ভোট বর্জনের মধ্যে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি আলাদা নির্বাচন করলেও দুই দলের মধ্যে সমঝোতা ছিল। ২০১৮ সালে আবার জোট করে দুই দল।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট