1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
যুবলীগ নেতা হত্যায় কারাগারে বাবুল চেয়ারম্যান - বাংলা টাইমস
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:১৮ অপরাহ্ন

যুবলীগ নেতা হত্যায় কারাগারে বাবুল চেয়ারম্যান

কুমিল্লা প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৩৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

কুমিল্লার তিতাসের আলোচিত যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম জহির (৩৫) হত্যা মামলার অন্যতম আসামি ভিটিকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাবুল আহমদের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন কুমিল্লা বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ আদালত।

 

মহামান্য উচ্চ আদালতের নির্দেশনা ৬সপ্তারের জামিন শেষে রোববার (২২ জানুয়ারি) আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে উভয় পক্ষের শুনানীয়ন্তে আদালত এ আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাদী পক্ষের আইনজীবি এসিস্ট্যান্ট পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট মো. আবদুল আলিম। তিনি আরো জানান, এ নিয়ে যুবলীগ নেতা হত্যা মামলার এজাহার নামীয় ১০জন আসামী কারাগারে রয়েছেন।

নিহত জহিরুল ইসলাম ভিটিকান্দি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হোসেন মোল্লার ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৬ ডিসেম্বর বিকালে উপজেলার মানিককান্দি গ্রামে মাছের প্রজেক্ট ও মাছ ধরা নিয়ে দীর্ঘদিনের শত্রুতার জেরে সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হোসেন মোল্লা গ্রুপ ও একই গ্রামের সাবেক মেম্বার সাইফুল ইসলাম গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ ও বর্তমান চেয়ারম্যান বাবুল আহমেদের সামনে থেকে তুলে নিয়ে কুপিয়ে-পিটিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে যুবলীগ নেতা জহিরকে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, মানিককান্দি গ্রামের একটি মাছের প্রজেক্ট নিয়ে দীর্ঘদিনের শত্রুতা চলে আসছিলো সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হোসেন মোল্লা গ্রুপ ও একই গ্রামের সাবেক মেম্বার সাইফুল ইসলাম গ্রুপের মধ্যে। এরই জেরে গেলো বছরের ৬ডিসেম্বর বিকালে ওই প্রজক্টে মাছ ধরা নিয়ে উভয় গ্রুপে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এই খবর পেয়ে ৪০/৫০জন নিয়ে ঘটনাস্থলে যান বর্তমান চেয়ারম্যান বাবুল আহমেদ ও বিষয়টি মীমাংসার আশ্বাস দিয়ে যুবলীগের সহ-সভাপতি জহিরকে ডেকে নেন এবং তিতাস থানা পুলিশকেও খবর দেন। কিছুক্ষণ পর পুলিশ ও বাবুল চেয়ারম্যানের সামনে থেকে সাইফুল মেম্বার ও তার ছেলেসহ সন্ত্রাসীরা জহিরকে তুলে নিয়ে কুপিয়ে-পিটিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে।

মামলার বাদী নিহতের ভাই এসহাক মোল্লা বলেন, বাবুল চেয়ারম্যান ও সাইফুল মেম্বার আমার বড় ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। মামলার ৪৩ জন আসামীর মধ্যে প্রধান আসামী সাইফুল মেম্বারসহ ১০ জন জেল হাজতে আছে ও ২৬ জন উচ্চ আদালতের আদেশে জামিনে আছে এবং ৭জন পলাতক রয়েছে।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট