1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
দুপুরে নবজাতক চুরি, রাতে নিজেই জন্ম দিলেন কন্যা সন্তান - বাংলা টাইমস
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:২১ অপরাহ্ন

দুপুরে নবজাতক চুরি, রাতে নিজেই জন্ম দিলেন কন্যা সন্তান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৪৬২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল থেকে দুপুরে বাচ্চা চুরি করা তানিয়া আক্তার (২৩) রাতেই একটি মেয়ে সন্তান জন্ম দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে সিজার অপারেশনের মধ্যদিয়ে তিনি সন্তান প্রসব করেন।

 

এর আগে দুপুরে তিনি ৩ দিনের এক নবজাতক চুরি করে নিয়ে যান। পরে অভিযান চালিয়ে ঘটনার ৫ ঘণ্টা মধ্যে তাকে আটক করে পুলিশ৷ আটকের পর পুলিশ জানতে পারে তানিয়া নিজেও গর্ভবতী। রাতে থানায় প্রসব বেদনা উঠলে তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। তানিয়া সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়নের সিন্দুরা গ্রামের নিয়াজ আহাম্মদ লিটনের স্ত্রী।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার তালশহর পূর্ব ইউনিয়নের ফরিদ মিয়ার স্ত্রী রেখা আক্তার (২৭) ৩ দিন আগে হাসপাতালে একটি ছেলে সন্তান জন্ম দেন।গতকাল বৃহস্পতিবার বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে তানিয়া এসে নবজাতকের ঠান্ডা লেগেছে বলে জানায় রেখাকে। পাশাপাশি রেখার স্বামী দরিদ্র হওয়ায় নিজ খরচে নবজাতককে ভালো চিকিৎসক দেখাবেন বলেও জানান তিনি। এরপর রেখাকে ৫০০ টাকা দিয়ে ফল কিনে আনার জন্য বলে রেখার ছোটবোন তিশামনিকে নিয়ে নবজাতককে চিকিৎসক দেখানোর জন্য হাসপাতাল থেকে বের হয়ে যান তানিয়া।

হাসপাতাল থেকে বের হয়ে সেই তানিয়া প্রথমে সোনার একটি আংটি ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে রেখার বোনের কাছে দেন। সেখান থেকে প্রথমে কুমারশীল মোড় আমিন কমপ্লেক্সে এক শিশু চিকিৎসকের চেম্বারে যান। কিন্তু সিরিয়াল না পেয়ে আরেক শিশু চিকিৎসকের চেম্বারের যান। ওই হাসপাতালে রেখার বোন টয়লেটে গেলে এই সুযোগে নবজাতকটিকে নিয়ে পালিয়ে যান তানিয়া ।

সূত্রে আরও বলেন, খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজ দেখি। এরপর বিভিন্ন জায়গায় শিশুটিকে উদ্ধার করতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। পরে তথ্য-প্রযুক্তির মাধ্যমে সদর উপজেলার সিন্দুরা গ্রামে অভিযান চালিয়ে শিশুসহ তানিয়া নামের ওই নারীকে আটক করা হয়। রাতে সন্তান প্রসবের লক্ষ্মণ দেখা দিলে আমরা জানতে পারি তিনি গর্ভবতী। পরে তাকে হাসপাতালে পাঠানো হলে সিজারিয়ানের মাধ্যমে তিনি কন্যা সন্তান জন্ম দেন।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বাংলা টাইমসকেবলেন, মা ও নবজাতক সুস্থ আছেন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট