1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ/ আহত যুবদলকর্মী শাওনের মৃত্যু - বাংলা টাইমস
বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৮:১৪ অপরাহ্ন

পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ/ আহত যুবদলকর্মী শাওনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক 
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৩১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

মুন্সিগঞ্জে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে আহত যুবদলকর্মী শাওন মারা গেছেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার পর তার মৃত্যু হয়।

 

ঢাকা মেডিকেল ক্যাম্প পুলিশ ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এর আগে বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুরে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যসহ জ্বালানি তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি ও বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ-সমাবেশ ডাকে জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা।

এ সময় নিজেদের মধ্যে হট্টগোল সৃষ্টি করলে এতে বাঁধা দেয় পুলিশ। পরে ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশ সদস্যদের ওপর হামলা চালায় বিএনপি নেতাকর্মীরা। মুহূর্তেই রণক্ষেত্র পরিণত হয় মুক্তারপুর পুরাতন ফেরিঘাট এলাকা। পরে ওই ঘটনায় বিএনপির ২৪ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব জানান, বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ স্থলে পুলিশের ওপর অতর্কিত হামলার ঘটনায়, বৃহস্পতিবার সকালে সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে হামলার সঙ্গে জড়িত বিএনপি নেতাকর্মীদের আটক করা হয়।

মামলা: মুন্সীগঞ্জ শহরের উপকন্ঠ মুক্তারপুর পুরাতন ফেরীঘাটে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় দেড়-সহস্রাধিক আসামী করে থানায় পৃথক দু’টি মামলা রুজু করা হয়েছে। এতে গ্রেফতার করা হয়েছে অন্তত ২৪ জনকে। বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাতে সদর থানায় ওই দু’টি মামলা রুজু করে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও অর্থ) সুমন দেব মামলা রুজুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, পুলিশের উপর হামলা, অস্ত্র লুটের চেষ্টা ও সরকারি কাজে বাঁধা দেওয়ার ঘটনায় সদর থানায় এসআই মাঈনউদ্দিন বাদী হয়ে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব কামরুজ্জামান রতনকে প্রধান আসামী করে দলের ৩১৩ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত পরিচয় আরও ১ হাজার ২০০ জনকে আসামী করে এ মামলা দায়ের করেন। এসআই মাঈনউদ্দিনের দায়ের করা এ মামলায় আটক ২৪ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। আগেরদিন বুধবার দিনগত রাতে মুক্তারপুরসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ২৪ জনকে আটক করে। তাদের ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে গতকাল সন্ধ্যায় আদালতে পাঠানো হয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরও জানান, মুক্তারপুর এলাকার বাসিন্দা শ্রমিক লীগ কর্মী আব্দুল মালেক বাদী হয়ে দোকানপাট ভাংচুর ও মোটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় অপর আরেকটি মামলা দায়ের করেন। এতে জেলা বিএনপির আহবায়ক সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাইয়ের ছোট ভাই ও সদর উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মহিউদ্দিন আহমেদকে প্রধান আসামী করা হয়েছে। মামলায় ৫২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে আরও ২০০ জনকে।

 

এদিকে, পুলিশের উপর বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলার প্রতিবাদে গতকাল আওয়ামী লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের ব্যানারে পৃথক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করা হয়েছে। বিকেল ৫ টার দিকে শহরের পুরাতন কাচারী এলাকায় প্রতিবাদ সমাবেশ করে জেলা আওয়ামী লীগ। এতে বক্তৃতা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক আলহাজ্ব মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

এছাড়া এদিন সকালে শহরের হাটলক্ষèীগঞ্জ এলাকা থেকে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ব্যানারে প্রতিবাদ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে থানারপুল এলাকায় এসে সমাবেশে মিলিত হয়। এতে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আল-মাহমুদ বাবু ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মাওলা তপন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট