1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
যবিপ্রবির তিন শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কার - বাংলা টাইমস
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৯:১৬ অপরাহ্ন

যবিপ্রবির তিন শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কার

যশোর প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২১ মে, ২০২২
  • ৩৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
ফাইল ফটো

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) তিন শিক্ষার্থীকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। শনিবার (২১ মে) দুপুরে এক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

 

আজীবনের বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা হলো- পরিবেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের (ইএসটি) মো. আল-আমিন, গণিত বিভাগের মো. সোহেল রানা এবং পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের মো. বারিউল হক মুবিন। তারা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-১৭ বর্ষের শিক্ষার্থী।

রিজেন্ট বোর্ডের সভায় সভাপতিত্ব করেন যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন। একইসঙ্গে র‌্যাগিংয়ের ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের নার্সিং অ্যান্ড হেল্থ সায়েন্স বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

রিজেন্ট বোর্ডে উত্থাপিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে জানানো হয়, গত ১৭ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মসিয়ূর রহমান হলের ৩২০ নম্বর কক্ষ থেকে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র সাব্বির আলমকে ডেকে নিয়ে গণিত বিভাগের সোহেল রানা, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের বারিউল হক মুবিন এবং পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের আল-আমিন শারীরিকভাবে নির্যাতন করে। নির্যাতনে সাব্বির আলম জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।

ওই কক্ষের আরও ১০-১৫ ছাত্র তাকে মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছিল বলেও তদন্তে বেরিয়ে আসে। সাব্বির জ্ঞান হারানোর পর তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার চেষ্টা করা হয় এবং হাসপাতালে না নিয়ে সময় ক্ষেপণ করা হয়। এরপর তার শারীরিক অবস্থা অবনতি হলে তাকে ধরাধরি করে নিচে নামিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সযোগে যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালে সাব্বিরকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কিছু শারীরিক পরীক্ষা করানো হয়। পরদিন সকালে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই তাকে হলে নিয়ে আসা হয় এবং প্রশাসনের কাছে কোনো অভিযোগ না করার জন্য হুমকি দেওয়া হয়। সাব্বিরকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন, হুমকি প্রদান এবং আলামত লুকানোর চেষ্টার ঘটনা প্রমাণিত হওয়ায় রিজেন্ট বোর্ডে অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের আজীবন বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বিভিন্ন বিভাগের আরও ১০ জন শিক্ষার্থীকে ভবিষ্যতে র‌্যাগিংয়ের মতো অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকবে না উল্লেখ করে অভিভাবকের সম্মতিসহ ৩০০ টাকার স্ট্যাম্পে মুচলেকা দিতে হবে মর্মে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। মুচলেকা না দিলে ওই শিক্ষার্থীদেরও এক বছরের জন্য বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত রিজেন্ট বোর্ডের সভায় গৃহীত হয়। ওই ১০ শিক্ষার্থীর মধ্যে তিনজন ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের এবং সাতজন ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট