1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন
নোটিশ ::
...Welcome To Our Website...

‘মরিয়ম পড়ে যাওয়ার পরও চালিয়ে নেয়া হয় বাস’

নিজস্ব প্রতিবেদক 
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ৫০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

শিশু মরিয়ম পড়ে যাওয়ার পর চালক দ্রুত বাস চালিয়ে ঘটনাস্থল ছেড়ে যায়। ফিরতি যাত্রার সময় জানতে পারেন, শিশুটি মারা গেছে। গ্রেপ্তার এড়াতে গাড়িচালক ও তার সহকারী আত্মগোপনে চলে যান।

 

শনিবার (১৩ নভেম্বর) র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন কারওয়ান বাজারে মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

প্রগতি সরণিতে শিশু মরিয়মের (১০) মৃত্যুর ঘটনায় রাইদা পরিবহনের গাড়িচালক মো রাজু ও তার সহকারী ইমরান হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

তিনি বলেন, ‘জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা জানিয়েছে, রাইদা পরিবহনটিতে ওই সময় গেটলক সার্ভিস চালু ছিল। শিশুটি ওই বাসে ভিক্ষা করতে উঠেছিল। একই সময় বাসচালকের সহকারী ইমরান যাত্রীদের থেকে ভাড়া তুলছিলেন। ইমরান শিশুটিকে বাস থেকে নেমে যেতে বলেন এবং গাড়িচালককে গতি কমাতে অনুরোধ করেন। এর কিছুক্ষণ আগেই বাসটিকে একবার গতি কমাতে হয়। তাই চালক বিরক্তি প্রকাশ করেন। শিশুটিও তাড়াহুড়া করে নামতে যায়। এতেই আহত হয় সে।

খন্দকার আল মঈন বলেন, বাসের যাত্রীরা মেয়েটিকে পড়ে যেতে দেখে বাস থামাতে বলেন। কিন্তু পেছনে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বাস থাকায় হামলা ও ভাঙচুরের ভয়ে চালক দ্রুত ঘটনাস্থল ছেড়ে যান। অভিযুক্ত ব্যক্তিরা বাসটিকে পোস্তগোলার হাসনাবাদের একটি বাস ডিপোতে রেখে পালিয়ে ছিলেন। আবদুল্লাহপুর থেকে শুক্রবার রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে যমুনা ফিউচার পার্কের উল্টো পাশ থেকে একটি মেয়েশিশুর (১০) মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় শিশুর বাবা মো রাজু ভাটারা থানায় মামলা করেন।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট