1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:৫০ অপরাহ্ন
নোটিশ ::
...Welcome To Our Website...

এহসানের এমডিসহ তার তিন ভাই ৪ মামলায় শ্যোন এ্যারেষ্ট

পিরোজপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৬১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

অধিক মুনাফার প্রলোভন দেখিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতারকৃত পিরোজপুরে এহসান গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুফতি মাওলানা রাগীব আহসান ও তার অপর তিন ভাইকে ৪ মামলায় শ্যোন এ্যারেষ্ট দেখানো হয়েছে।

 

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) তাদের পিরোজপুর আদালতে হাজির করে দায়েরকৃত অপর ৪টি মামলায় শ্যোন এ্যারেষ্ট দেখানো হয়।

 

পরে পিরোজপুরের অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইকবাল মাসুদ তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। আসামী পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট আকরাম আলী মোল্লা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

এ মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী এমডি নুরুল ইসলাম সরদার শাহজাহান জানান, মামলাগুলো সিআইডির কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

উল্লেখ্য, প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাৎ এর অভিযোগে পিরোজপুর সদর থানায় এহসান গ্রুপের বিরুদ্ধে ৫টি মামলা দায়ের করা। এসব মামলায় এহসান গ্রুপের ব্যবস্থপনা পরিচালক মুফতি মাওলানা রাগীব আহসান, তার অপর তিন ভাই সহকারী পরিচালক আবুল বাসার, পরিচালনা কমিটির সদস্য ও তার অপর দুই ভাই মাওলানা মাহমুদুল হাসান ও মো. খাইরুল ইসলামকে আসামী করা হয়।

 

পিরোজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার( অপরাধ ও প্রশাসন) মোল্ল্যা আজাদ হোসেন জানান, গেল ৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় ঢাকার একটি বাসা থেকে এহসান গ্রুপের এমডি মুফতী মাওলানা রাগীব আহসান ও তার ভাই আবুল বাশারকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ঢাকা এবং অপর দুই ভাই মুফতী মাওলানা মাহমুদুল হাসান ও মোঃ খাইরুল ইসলামকে পিরোজপুরের খলিশাখালীর নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পিরোজপুর পুলিশ।

 

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আ.জ.মো: মাসুদুজ্জামান মিলু জানান, পিরোজপুর সদর উপজেলার মূলগ্রাম রায়েরকাঠী এলাকার বাসিন্দা স্কুল শিক্ষক হারুনার রশিদ বাদী হয়ে মুফতী মাওলানা রাগীব আহসান ও তার তিন ভাই মাওলানা আবুল বাশার, মোঃ খাইরুল ইসলাম ও মুফতি মাহমুদুল হাসান এর বিরুদ্ধে ৯১ কোটি ১৫ লাখ ৯৩৩ টাকার আত্মসাৎ এর অভিযোগ এনে প্রথম পিরোজপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

 

পরে পিরোজপুর সদর উপজেলার কুমারখালী এলাকার মো: হেমায়েত উদ্দিন বাদী হয়ে সদর থানায় ২ কোটি ৫৭ লাখ ৪০ হাজার টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। একই দিনে সদর উপজেলার শিকারপুর এলাকার মো: আব্দুল মালেক বাদী হয়ে ২ লাখ ৭৫ হাজার ২০০ টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। মঠবাড়িয়া উপজেলার তুষখালী এলাকার মো: মনির বাদী হয়ে ৩ লাখ ৩৯ হাজার ২০০ টাকা আত্মসাৎ ও প্রতারনা মামলা দায়ের করেন।

 

এ ছাড়া একই উপজেলার ছোটশৌলা গ্রামের আবুল হোসেন বাদী হয়ে ১৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্মসাৎ এর মামলা দায়ের করেন।

 

 

পিরোজপুর সদর উপজেলার তেজদাসকাঠী এলাকার বাসিন্দা হারুনার রশীদ এর করা মালায় মামলায় গ্রেফতারকৃত রাগীব আহসান ও তার তিন ভাইকে ৭ দিনের রিমান্ডে নেয় আদালত। রিমান্ড শেষে গত ২১ সেপ্টেম্বর তাদের আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাদের পুনরায় কারাগারে প্রেরণ করেন।

 

এদিকে, পিরোজপুর সদর থানায় এহসান গ্রুপের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ৫টি মামলা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সিআইডি ও পিবিআইতে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪টি মামলা সিআইডিকে এবং একটি মামলা পিবিআইকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

 

উল্লেখ্য, এই মামলায় আদালত গত ১৩ সেপ্টেম্বর রাগীব এবং তার ভাইদের ৭ দিনের পুলিশ রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয়। আদালত পরবর্তীতে রিমান্ড চলাকালীন সময় গত রোববার (১৯) সেপ্টেম্বর ৫টি মামলার মধ্যে ৪টি অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) এবং অন্যটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভিস্টিগেশ (পিবিআই) তে হস্তান্তরের নির্দেশ দেয় পুলিশ হেড কোয়ার্টার্স।

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট