1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
জুতা পায়ে শহীদ মিনারে ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রেীয় নেতা - বাংলা টাইমস
সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১১:৩৫ অপরাহ্ন

জুতা পায়ে শহীদ মিনারে ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রেীয় নেতা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৬৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্র কমিটির সব নিবার্চিত সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লার বিরুদ্ধে শহীদ মিনার অবমাননার অভিযোগ উঠেছে। সভাপতি নিবার্চিত হবার পর রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) প্রথমবারের মত নিজ জেলা কুড়িগ্রামের এসে শহীদ মিনারে নেতা-কর্মীদের ফুলেল শুভেচ্ছা গ্রহন করেন।

 

এসময় কুড়িগ্রাম জেলা শহরের ঘোষপাড়াস্থ কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে জুতা পায়ে ওঠার ছবি প্রকাশ হওয়ায় তীব্র প্রতিক্রীয়া সৃষ্টি হয়েছে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কমর্ীদের মাঝে।

 

একই সঙ্গে জনমনে দেখা দিয়েছে ক্ষোভ। ফেসবুকে নানা প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন অনেকে। ‘তার নিজ নামের (বিন ইয়ামিন মোল্লা)  ফেসবুকে দেয়া পোষ্টে দেখা যায় শহীদ মিনারে জুতা পায়ে ফুল নিয়ে দাড়িয়ে’- এ দৃশ্য দেখে জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট রুহুল আমিন দুলাল ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এ ধরণের অপরাধ অমার্জনীয়। দেশের প্রতি ভালবাসা, শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা না থাকলে এরকমই হয়। যাদের ভিতর দেশ প্রেম নেই তারা কি ভাবে সাধারণ মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবে। এ ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।

খোজ নিয়ে জানাযায়, ররিবার সকালে বিন ইয়ামিন মোল্লা নাগেশ্বরীর নেওয়াশিতে তার নিজ এলাকায় একটি সমাবেশে যোগদিতে যাওয়ার সময় কুড়িগ্রাম ঘোষপাড়ায় আগে থেকে অবস্থানরত নেতাকমর্ীরা তাকে স্বাগত জানান। এসময় জুতা পায়ে নেতা-কমর্ীসহ শহীদ মিনারে উঠে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

 

 

জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাকিবুজ্জামান রাকিব বলেন, ‘ বিন ইয়ামিন ছাত্রদের নেতৃত্ব দিতে চান। কিন্তু ছাত্রদের বুকের রক্তে আঁকা শহীদ মিনার কী করে পদদলিত করলেন?’

 

 

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদ বিন ইয়ামিনসহ সহযোগীদের বিরুদ্ধে শহীদ মিনার অবমাননার অভিযোগে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানিয়ে বলেন, ‘বিন ইয়ামিনদের শহীদ মিনারের অবমাননা পরিকল্পিত। ভাষা শহীদদের এভাবে অবজ্ঞা মেনে নেয়া যায়না।’ একই দাবী জানিয়ে জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি ও জেলা ক্রীড়াসংস্থার সাধারণ সম্পাদক সাঈদ হাসান লোবান বলেন, ‘শহীদ মিনার আমাদের ভাষা সংগ্রাম ও চেতনার প্রতীক। এই শহীদ মিনার অবমানননা মানে জাতিকে অপমান করা। এদেরকে চিহিৃত করে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া উচিৎ’।

 

অভিযোগের বিষয়ে বিন ইয়ামিন মোল্লা বলেন, ‘শহীদ মিনারের বেদি বা সিঁড়িতে আমরা জুতা পায়ে উঠিনি। মুল মঞ্চে উঠেছি। ঢাকা শহীদ মিনারের মঞ্চেও অনেকে জুতা পায়ে ওঠে। আপনারা খোঁজনিয়ে দেখতে পারেন।’

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট