1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Editor :
শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:২৯ অপরাহ্ন
নোটিশ ::
...Welcome To Our Website...

জন্মদিনে শুভেচ্ছায় ভাসলেন নরেন্দ্র মোদি

বাংলা টাইমস ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৭৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জন্মদিন ১৭ সেপ্টেম্বর। ১৯৫০ সালে জন্ম তার। আজ ৭১ পূর্ণ করলেন প্রধানমন্ত্রী। একইসঙ্গে আগামী ৭ অক্টোবর প্রশাসক জীবনের ২০ বছর পূর্ণ করতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদি।

 

নরেন্দ্র মোদির জন্মদিনে তাকে ট্যুইটারে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাহুল গান্ধি থেকে শুরু করে জগৎ প্রকাশ নাড্ডা, ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার এবং আরও অনেকে ৷

 

আজ (১৭ সেপ্টেম্বর) সারাদেশ ব্যাপী সবথেকে বেশি সংখ্যক ভ্যাকসিন দেওয়ার কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। এবিষয়ে নিজেই জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মান্ডব্য। বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, “আগামিকাল আমাদের প্রিয় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন। প্রত্যেকে যেন তাঁর প্রিয়জনের ভ্যাকসিন পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে। এটাই হবে প্রধানমন্ত্রীকে আমাদের তরফ থেকে দেওয়া সবথেকে বড় উপহার।”

 

 

২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই মোদির জন্মদিন পালন করে আসছে বিজেপি। দিনটি তারা সেবা দিবস হিসেবে পালন করছে তারা। অন্যবার সর্বাধিক সাত দিন ব্যাপী জন্মদিনের অনুষ্ঠান পালন করা হলেও এবছর ২০ দিন ধরে পালন করা হবে ওই অনুষ্ঠান। ইতিমধ্যে জে পি নাড্ডার তরফে দলের নেতা ও কর্মীদের জন্য বিশেষ নির্দেশ পাঠানো হয়েছে। সেখানে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে আজ থেকে আগামী ২০ দিন কী কী কর্মসূচি পালন করতে হবে।

 

 

সুবক্তা হিসেবেও পরিচিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। নির্বাচনের আগে একাধিকবার বাংলায় এসে নিজের ভাষণ রেখেছেন তিনি। অন্যদিকে সোশাল মিডিয়াতেও যথেষ্ট জনপ্রিয় মোদি। লকডাউনের শুরু থেকে তাঁর দেওয়া একাধিক কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছেন সাধারণ মানুষ। তাঁর বেশ কিছু বক্তব্যও বেশ জনপ্রিয়। একনজরে দেখে নিন প্রধানমন্ত্রীর কয়েকটি উক্তি-

 

কোনও গাণিতিক বিষয় নিয়ে চিন্তা করার অর্থ এটা নয় যে শিশুরা শুধু গাণিতিক প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা করছে। কিন্তু এটাও এক ধরণের ভাবনা।

 

-আমি প্রতিটি বাবা মায়ের কাছে অনুরোধ করব কোনও প্রাপ্তি যেন তাঁদের সন্তানের কাছে খ্যাতির বিষয় হিসেবে তুলে না ধরেন। প্রতিটি শিশুর মধ্যে একটি অনন্য প্রতিভা রয়েছে।

-কঠোর পরিশ্রম কখনও ক্লান্তি নিয়ে আসে না। কঠোর পরিশ্রম বরং শান্তি নিয়ে আসে।

-মহাত্মা গান্ধি কখনও পরিচ্ছনতার সঙ্গে আপোষ করেননি। তিনি আমাদের স্বাধীনতা দিয়েছেন। আমরা তাঁকে স্বচ্ছ ভারত উপহার দেব।

-একজন গরিব পিতার এক সন্তান তোমার সামনে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এটাই গণতন্ত্রের ক্ষমতা।

-যদি ১২৫ কোটি মানুষ একসঙ্গে কাজ করে তাহলে ভারত ১২৫ কোটি পদক্ষেপ এগিয়ে যাবে।

-এটা কোনও সময়ই একটি মানুষের বিষয় ছিল না। এটা একটা জাতির বিষয় ছিল।

-ইউথ অফ ইন্ডিয়া- শুধুমাত্র নতুই বয়সের ভোটার নয়, নতুন বয়সের ক্ষমতা

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় সিসা হোস্ট